পার্সিমন ফলের ৭টি মজার রেসিপি

পার্সিমন, কোথাও কোথাও শ্যারন ফল নামেও পরিচিত। ফলটি দেখতে যেমন রসালো, খেতেও তেমনই সুস্বাদু। শুধুমাত্র ফল হিসাবেই নয়; স্মুদি, জ্যাম কিংবা সালাদ তৈরীতেও পার্সিমনের রয়েছে দারুণ জনপ্রিয়তা। তাহলে দেখে নেয়া যাক চমৎকার ফল পার্সিমনের ৭টি মজার রেসিপি –

১. পার্সিমন স্মুদিঃ

২টি মিডিয়াম পার্সিমন, ১টি মাঝারি ঠান্ডা কলা, ১০-১২ টি কাজু বাদামসহ ১ কাপ দুধ, ১/৪ চামচ দারুচিনি, ১ টেবিল চামচ ম্যাপেল সিরাপ বা চিনি একটি ইলেকট্রিক ব্লেন্ডারে নিয়ে ভালোভাবে ব্লেন্ড করুন। এবার একটি গ্লাসে কয়েক বরফ টুকরা নিন এবং ব্লেন্ডেড মিশ্রনটি যোগ করুন। ব্যাস তৈরী হয়ে গেলো ঝটপট পার্সিমন স্মুদি।

২. পার্সিমন – বেরী স্মুদিঃ

৩ টি কাটা পার্সিমন, ১ কাপ ঠান্ডা বেরি (স্ট্রবেরি ব্যবহার করতে পারেন), ১ কাপ বাদাম দুধ, ১ কাপ বেরি প্রোটিন স্মুদি পাউডার, ২ চা চামচ ফ্রেশ লেবুর রস, কিছুটা দারুচিনি নিয়ে একটি ইলেকট্রিক ব্লেন্ডারে ভালোভাবে ব্লেন্ড করুন। এবার একটি গ্লাসে কয়েক বরফ টুকরা নিয়ে ব্লেন্ডেড মিশ্রনটি যোগ করুন। ব্যাস মজাদার পার্সিমন – বেরী স্মুদি তৈরী।

৩. পার্সিমন এবং হলুদের স্মুদিঃ

৪টি পাকা পার্সিমন, ২টি ছোট কলা, ১ কাপ পানি, ১/৪ টেবিল চামচ দারুচিনি, ১/৪ টেবিল চামচ হলুদ গুড়া, অর্ধেক লেবুর রস একটি ইলেকট্রিক ব্লেন্ডারে নিয়ে ভালোভাবে ব্লেন্ড করুন। স্মুদির মিশ্রণটি খুব ঘন হলে আরও কিছুটা পানি করুন। এবার একটি বড় গ্লাসে কয়েক টুকরো বরফ নিয়ে তৈরীকৃত স্মুদি ঢালুন এবং উপরে এক চামচ দইয়ের সাথে কিছুটা কোকো পাওডার এবং কিছুটা দারুচিনি দিয়ে সজ্জিত করুন এবং পরিবেশন করুন দারুণ স্বাদের ‘পার্সিমন এবং হলুদের স্মুদি’।

 

৪. পার্সিমন-কমলা-গাজর স্মুদিঃ

১টি পার্সিমন, ১টি বড় কমলা, ১টি মাঝারি গাজর, ১/২ বড় পাকা কলা, ১ চা চামচ নারকেল তেল, ১/৩ চা চামচ হলুদ গুঁড়ো, ১/২ চা চামচ ভ্যানিলা এক্সট্রাক্ট, ১/৩ চা চামচ কাটা আদা, কিছুটা চিনি একটি ইলেকট্রিক ব্লেন্ডারে নিয়ে ভালোভাবে ব্লেন্ড করুন। স্মুদির মিশ্রণটি খুব ঘন হলে কিছুটা পানি যোগ করুন।
এবার একটি বড় গ্লাসে কয়েক টুকরো বরফ নিয়ে তৈরীকৃত স্মুদি ঢালুন এবং বেরী ও নারকেল চিপস দিয়ে উপরে সজ্জিত করুন এবং ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশন করুন মজাদার ‘পার্সিমন-কমলা-গাজর স্মুদি’

৫. পার্সিমন জ্যামঃ

৬টি পাকা খোসা ও বীজ ছাড়ানো পার্সিমন নিন। এবার ফুড প্রসেসর/ব্লেন্ডার দিয়ে ফলটি ভালোভাবে ব্লেন্ড করুন। মাঝারি উচ্চ আঁচে একটি মাঝারি সসপ্যানে ব্লেন্ডেড পার্সিমন নিন এবং প্রয়োজনমতো চিনি যুক্ত করুন। মাঝারি আঁচে ১৫ মিনিটের মতো সিদ্ধ করুন। এবার একটি ছোট পাত্রে, কর্নস্টার্চ এবং পানি ভালোভাবে মিশ্রিত করুন।
এবার তৈরীকৃত মিশ্রন দুইটি একসাথে মেশান এবং তাতে লেবুর রস যোগ করে আরও ১৫ মিনিটের জন্য কম মাঝারি আঁচে সামান্য ঘন হওয়া পর্যন্ত সিদ্ধ করুন। আপনি যদি মিশ্রনটি একটু পাতলা করতে চান তবে কর্নস্টার্চ এবং পানির মিশ্রণটি আরও কিছুটা যোগ করুন। কিন্তু কর্নস্টার্চ সরাসরি যোগ করবেন না, এটি পানিতে না গুলিয়ে নিলে জমাট বেঁধে যাবে। ঘরের তাপমাত্রায় জ্যামটি শীতল হতে দিন। এবার চমৎকার স্বাদের পার্সিমন জ্যাম রেফ্রিজারেটরে সংরক্ষণ করুন এবং উপভোগ করুন। এটি ৭-১০ দিন সংরক্ষণ করা যায়।

৬.  পার্সিমন এবং আপেল সালাদঃ

১টি কাটা পার্সিমমন, পাতলা করে অর্ধ-রাউন্ডে কাটা ১ টি আপেল, পাতলা আধা-রাউন্ডে কাটা ১/৪ কাপ পনির, ১-২ টেবিল চামচ পাম্পকিন সীড, ২ টেবিল চামচ ডালিম দানা নিয়ে কিছুটা জলপাই তেল এবং সরিষাবাটা দিয়ে মিশ্রিত করুন। এবার পার্সিমন, আপেল, পনির, পাম্পকিন সীড, ডালিম এবং স্পিনাক বা লেটুস পাতা দিয়ে সজ্জিত করে পরিবেশন করুন পার্সিমন-আপেল সালাদ।

৭. পার্সিমন স্কুপঃ

ব্লেন্ডার বা খাবার প্রসেসরে ১টেবিল চামচ চিনির সাথে ৪-৫ টি পার্সিমন নিয়ে প্রায় ৩০ সেকেন্ডের মতো ভালোভাবে ব্লেন্ড করুন। এবার মাঝারি আকারের মিক্সিং বাটিতে ব্লেন্ডেড মিশ্রনটি নিন এবং ১/২ কাপ কড়া ব্ল্যাক টি, ১ টেবিল চামচ ফ্রেশ লেবুর রস এবং স্বাদ মতো লবণের নিয়ে মিশ্রিত করুন। এবার মিশ্রণটি খুব ঠান্ডা না হওয়া পর্যন্ত প্রায় ২-৩ ঘন্টা ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা করুন। এবার একটি আইসক্রিম মেকারের ভিতর ঠান্ডা স্কুপ টি নিন এবং আরো ৪ ঘন্টার মতো ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা করুন। ব্যাস তৈরী মজার স্বাদের পার্সিমন স্কুপ। সুন্দর করে সাজিয়ে ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশন করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

My Rewards